মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

“মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম” ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন একটি প্রকল্প। বর্তমানে প্রকল্পটির ৫ম পর্যায় চলমান। প্রাক-প্রাথমিক, গীতা শিক্ষা এবং বয়স্ক শিক্ষাকেন্দ্রের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা প্রকল্পের প্রধান কাজ। এছাড়া নিরক্ষরতা দূরীকরণে, বিদ্যালয়ে গমনোপযোগী ১০০% শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তিতে এবং ঝড়ে পড়া রোধ করতে প্রকল্পটি কাজ করছে। টেকসই উন্নয়ন অভিষ্ট অর্জন, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন, নারীর ক্ষমতায়ন এবং সরকারের ‘ভিশন-২০২১’ বাস্তব রূপায়নে প্রকল্পটি কার্যকর ভূমিকা রাখছে। ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ পর্যায়ের সফল বাস্তবায়নের পর “মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম-৫ম পর্যায়” শীর্ষক প্রকল্পটি ২০১৭ সালের জুলাই মাস থেকে শুরু হয়ে ডিসেম্বর ২০২০ সালে শেষ হবে।

প্রকল্পটি ২০০৩ সালে শুরু হলেও  ভোলা জেলায় এর কার্যক্রম শুরু হয় ২০১১ সালে । শুরু থেকেই ভোলা জেলা কার্যালয় অত্যন্ত দক্ষতার সাথে এই প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। বর্তমানে ভোলা জেলার ০৭ টি উপজেলায় মন্দির প্রাঙ্গনে ৪৯ টি  শিক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। সেগুলোর ৪০ টি প্রাক-প্রাথমিক, ০৬ টি গীতা শিক্ষা ও ০৩ টি বয়ষ্ক শিক্ষা কেন্দ্র। শিক্ষা কেন্দ্রগুলোতে নির্ধারিত শিক্ষার পাশাপাশি ধর্ম, নৈতিক মূল্যবোধের মাধ্যমে সন্ত্রাস/ জঙ্গীবাদ ও নেশামুক্ত সমাজ গঠনের শিক্ষা প্রদান করা হয়। এছাড়া বয়ষ্ক শিক্ষার মাধ্যমে নিরক্ষরতা মুক্ত করে স্বাক্ষর জ্ঞানসম্পন্ন করে তুলতে বয়ষ্ক শিক্ষা কেন্দ্রগুলো ভূমিকা রাখছে। গীতা শিক্ষা কেন্দ্রগুলো সনাতন ধর্মাবলম্বী কিশোর/কিশোরীদের গীতা শিক্ষায় পারদর্শী করে তুলছে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter